কালীগঞ্জে অলিতে গলিতে ডাম্পার নষ্ট হচ্ছে রাস্তা- ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানালেন ইউএনও

ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট
৬৯

জিএম মামুন নিজস্ব প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা কালীগঞ্জ উপজেলায় ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করছে অবৈধ শত শত ডাম্পার। চলছে হরহামেশা গ্রামাঞ্চল ও বাজার কেন্দ্রিক সড়কে। বেপরোয়া চলাচলের কারনে দুর্ঘটনার আশঙ্কাও কম নয়। এমনকি দুর্ঘটনাও ঘটে চলেছে প্রতিনিয়ত।

এসব ডাম্পার সাধারণ পরিবহণ কাজে ব্যবহারের জন্য আমদানি করা হলেও কতিপয় মালিকরা বিভিন্ন মহলকে ম্যানেজ করে। ইটভাটার ব্যবহারিত ফসলি জমির মাটি,পুকুরভরাটের জন্য মাটি বহন, বালি পাচারের কাজে। এসব ডাম্পারের বেপরোয়া চলাচল গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট ভেঙে চুরমার করে ধুলোয় পরিনত করে দিচ্ছে।পাশাপাশি কৃষি জমির টপ সয়েল কেটে ইটভাটায় সরবরাহ করছে। ডাম্পারের অত্যাচারে উল্লেখিত এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।

- Advertisement -

স্থানীয়দের অভিযোগ,সড়কে লাইস্নেস বিহীন অবৈধ ডাম্পার-ড্রাইভারদের কারণে রাস্তা-ঘাটে চলাচলকারী মানুষ সার্বক্ষণিক উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে চলাচল করছে। প্রশাসনের নাকের ডগায় অবৈধ এই বাহনের অবাধ চলাচল দেখেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না।

ডাম্পারের রেজি: নং বা ড্রাইভারের জন্য কোনো লাইসেন্সের প্রয়োজন না হওয়ায় এসব অবৈধ ডাম্পার পরিবহন ব্যবসায়ীরা স্বল্পমূল্যে সহজেই ক্রয় করেন। তারা এসব অবৈধ ডাম্পার সাধারন পরিবহনের পরিবর্তে ব্যবহার করছে অবৈধ কাজে।চালক অধিকাংশ অপ্রাপ্ত বয়স্ক ও লাইসেন্স বিহীন,ফলে কোন দায়বদ্ধতার বিষয়টি ও একেবারেই উপেক্ষিত।
তবে বেসরকারি হিসেব মতে, ওই সব ইউনিয়নে কমবেশি শতাধিক ডাম্পার এখন গ্রামের রাস্তায় অবাধে চলাচল করছে। ডাম্পারের বেপরোয়া চলাচলে নষ্ট হচ্ছে সড়ক উপসড়ক সমুহ।
ডাম্পারের কার্পেটিং রাস্তা বর্তমানে এখন ব্যাপক বিপর্যয়
গ্রামের সড়কগুলোতে মাটি আলগা হয়ে ধুলোই পরিনত হচ্ছে।
এই রাস্তাগুলোতে একটু বৃষ্টি ফোঁটা পড়লেই চলাচলের অযোগ্য হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা,
বিলীন হতে শুরু করেছে গ্রামের চলাচল সড়ক।
সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত রাস্তা-ঘাট ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।

দেখা গেছে ১৬ থেকে ২৫ বছরের কিশোররাও অদক্ষভাবে এসব ডাম্পার অবাধে চালাবার সুযোগ পাচ্ছে।

এক পরিসংখ্যানে জানা গেছে,বিগত কয়েক বছরে অর্ধশতাধিক লোক ডাম্পারের নিচে চাপা পড়ে প্রাণ হারিয়েছে। যেটা প্রতিনিয়ত গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।
চলতি মাসে কলারোয়ায় পুলিশ কনসটেবল এই ডাম্পারের কারনে জীবন দিতে হয়েছে। অবৈধ ডাম্পার ড্রাইভারদের ভয়ে সচেতন মানুষ সার্বক্ষণিক আতঙ্কের মধ্যে দিনাতিপাত করছে।
প্রায় সাড়ে ৩ টন ওজনের এই ডাম্পার রাস্তায় চলাচলের সময় কার উপর গিয়ে উঠে তা বলা মুশকিল হয়ে পড়ে।

তবে কোন অদৃশ্য শক্তির ইশারায় গ্রামাঞ্চলে চলছে এসব অবৈধ ডাম্পার এমনতর প্রশ্ন সচেতন মহলের। অবৈধ এসব ডাম্পার গুলোকে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান এলাকাবাসী।
এ বিষয়ে কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রহিমা বুশরা কাছে মুঠোফোনের মাধ্যমে জানতে চাইলে তিনি প্রতিবেদককে জানান। খুবই দ্রুত অবৈধ ডাম্পার গুলো আইনত ব্যবস্থা নিবে বলে আশ্বস্ত প্রদান করেন তিনি।

এই বিভাগের আরও সংবাদ